গামছা দিয়ে মুখ বেঁধে দশম শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা “পুলিশের”

বাংলাদেশ

– দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে পাশবিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে মাদারীপুর এক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য মোক্তার হোসেনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে…!!

– মাদারীপুর পুলিশ লাইনে কর্মরত পুলিশ সদস্য মোক্তার হোসেন শহরের টিবি ক্লিনিক সড়কের একটি বাসায় ভাড়া থাকেন। কিছুদিন আগে মোক্তার তার গর্ভবতী স্ত্রীকে গ্রামের বাড়িতে রেখে আসেন…!!

-বাসা খালি থাকায় রোববার রাতে প্রতিবেশী দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ঘরে ডেকে নেন। এ সময় দরজা বন্ধ করে ওই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। ধর্ষণে ব্যর্থ হলে মারধর শুরু করে মোক্তার…!!

-বিষয়টি টের পেয়ে বাইরে থেকে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয় এলাকাবাসী। এ কথা কাউকে জানালে ওই শিক্ষার্থীকে মেরে ফেলার হুমকিও দেয় ওই পুলিশ সদস্য।

-এক পর্যায়ে রাতেই ঘরের পেছনের ভেন্টিলেটর ভেঙ্গে ওই শিক্ষার্থীকে বাহিরে ফেলে দেয় মোক্তার। এতে ওই স্কুলছাত্রীর ডান পা ভেঙ্গে যায়। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে তাকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই পুলিশ সদস্যের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী…!!

-এদিকে নির্যাতিতা স্কুলছাত্রীর আলামত সংগ্রহ করে পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন মাদারীপুর সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার ডা. অখিল সরকার…!!

-এ ঘটনায় জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। পাশাপাশি ঘটনা প্রমাণিত হলে সর্বোর্চ্চ শাস্তির আশ্বাস দিয়েছেন মাদারীপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক…!!