পরিবার থেকে চাপে আছেন জয়া আহসান

বিনোদন

নব্বই দশকের জনপ্রিয় মডেল ফয়সাল আহসানউল্লাহকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান।

তখন থেকেই নামের শেষে ‘আহসান’ লেখেন তিনি।

২০১১ সালের দিকে তাদের বিয়ে-বিচ্ছেদ ঘটে বলে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবরে জানা যায়।

এরপর ব্যক্তিগত জীবনকে দূরে ঠেলে মিডিয়ায় ব্যস্ত হয়ে পড়েন এ অভিনেত্রী। ২০০৪ সালে মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘ব্যাচেলর’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বড়পর্দায় অভিষেক হয় জয়ার। এরপর ‘ডু্বসাঁতার’, ‘গেরিলা’, ‘চোরাবালি’, ‘দেবী’সহ বেশ কয়েকটি ঢাকাই চলচ্চিত্রে অভিনয় করে প্রশংসা কুড়িয়েছেন তিনি।

পাশাপাশি তার অভিনীত ‘রাজকাহিনি’, ‘বিসর্জন’, ‘ঈগলের চোখ’সহ কলকাতার বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্র সাড়া ফেলে। সম্প্রতি ‘বিনি সুতোয়’ নামে কলকাতার একটি চলচ্চিত্রের শুটিং শেষ করেছেন জয়া আহসান। ঢাকায় মুক্তির অপেক্ষায় আছে তার ‘বিউটি সার্কাস’।

ক্যারিয়ারে সাফল্যের তুঙ্গে থাকলেও জয়ার বিয়ে নিয়ে বেশ চিন্তিত তার পরিবার। আর তাই তো বিয়ের জন্য জয়াকে বেশ চাপে রেখেছেন পরিবারের সদস্যরা। তবে যতই চাপ আসুক না কেন আপাতত বিয়ের পিঁড়িতে বসতে আগ্রহী নন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জয়ী এ অভিনেত্রী।

দুই বাংলার জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী ‘দ্য নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’-এর বিনোদন ও জীবনযাপন বিষয়ক ম্যাগাজিন ‘ইনডালজ’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই বলেছেন। সাক্ষাৎকারে নিজের পছন্দ-অপছন্দ, বন্ধু, চলচ্চিত্র ভাবনা, অবসর যাপনসহ নানা বিষয়ে কথা বলেন জয়া আহসান।

ঢাকা ও কালকাতায় সমানতালে কাজ করা এ অভিনেত্রী বলেছেন, কলকাতায় তার ‘ভালো কোনও ছেলেবন্ধু নেই’। প্রেম করার মতো পর্যাপ্ত সময়ও তার হাতে নেই।

বিয়ের বিষয়ে কী ভাবছেন জানতে চাইলে জয়া বলেন, এখনই ঘরোয়া পরিবেশে নিজেকে বেঁধে ফেলতে চাই না। আমি আরও কাজ করতে চাই। পরিবার থেকে বিয়ের চাপ দেওয়া হলেও আমি না শোনার ভান করি।

জীবনসঙ্গী হিসেবে কেমন পাত্র চান, তাও বলেছেন জয়া। তিনি বলেছেন, পাত্রের চেহারা কোনও বিষয় নয়। তবে বিচক্ষণ ও প্রতিশ্রুতিশীল হতে হবে। সৃজনশীল ব্যক্তির মূল্য বুঝতে হবে।

newsomoy.com

Leave a Reply